Best Reseller Hosting Service in BD
মোট পোস্ট সংখ্যা: 54  »  মোট কমেন্টস: 8  
Facebook
Google Plus
Twitter
Linkedin

জেনেনিন অ্যানড্রয়েড স্মার্টফোনের ১০ স্মার্ট টিপস

এখন কমবেশি সবার হাতেই স্মার্টফোন শোভা পায়। এগুলোর বেশির ভাগই অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম চালিত। এসব ফোন ব্যবহারের জন্য যদি আপনারা যানা থাকে টোটকা তবে তো কথাই নেই। নির্বিঘ্নে চলবে আপনার ফোনটি। জেনে নিন ফোন ব্যবহারের ১০টি টিপস।

১। অ্যানড্রয়েড ফোনটির অ্যাপগুলোতে অটোমেটিক আপডেট চালু রাখুন। এতে অ্যাপগুলোর নিত্যনতুন সুবিধা সহজেই পাবেন। অটোমেটিক আপডেট চালু করার জন্য ফোনে সেটিংস অপশনে ‘অটো আপডেট’ নামে একটি বক্স পাবেন। এখান থেকে চালু করে দিন।

২। আপনার মোবাইল স্ক্রিনকে আকর্ষণীয় দেখাতে গুগল অ্যাপস স্টোর থেকে বিভিন্ন ধরনের লক স্ক্রিন ও লঞ্চার নামিয়ে নিতে পারেন।

e-HostBD Hosting Service

৩। উইজেট ব্যবহার করে খুব সহজেই সাজাতে পারবেন স্মার্টফোনের হোমস্ক্রিনটি। হোমস্ক্রিন সাজাতে উইজেট ব্যবহারের জন্য মেইন অ্যাপ লঞ্চার থেকে অপশনটি সিলেক্ট করে নিন। উইজেট ব্যবহার করে আপনার পছন্দের জিনিসগুলোকে হোমস্ক্রিনে নিয়ে আসতে পারবেন। এতে করে আপনি সহজেই আপনার স্মার্টফোনটিকে ইচ্ছানুযায়ী সাজাতে পারবেন।

৪। স্মার্টফোনের সেটিং মেনু-তে গিয়ে পাওয়ার সেভিং মুড অন করে নিন। তাছাড়া, কিছু ফোনে আলট্রা পাওয়ার সেভিং মোডও থাকে। এটি চালু থাকলে আপনার স্মার্টফোনটির ব্যাটারি দীর্ঘক্ষণ কাজ করবে।

৫। স্মার্টফোনে অনেক অ্যাপ্লিকেশন থাকাতে ব্যাটারির চার্জ দ্রুত শেষ হয়ে যায়। তাই জরুরি প্রয়োজনে বা কোথাও বেড়াতে গেলে অতিরিক্ত একটি ব্যাটারি অথবা পোর্টেবল চার্জার সঙ্গে রাখা উচিত। সঙ্গে রাখতে পারেন পাওয়ার ব্যাংকও।

৬। গুগল ক্রোম-এ সাইন ইন করে রাখলে আপনার পছন্দের সাইটগুলি খুব সহজে বুকমার্ক করতে পারবেন। ব্যবহার করাও সহজ হবে।

৭। ক্যাটেগরি ভাগ করে বিভিন্ন ধরনের অ্যাপস ফোল্ডার করে রাখতে পারেন। তা হলে দ্রুত প্রয়োজনীয় অ্যাপসগুলো ব্যবহার করতে পারবেন।

৮। অ্যানড্রয়েড ফোনে নির্মাতারা একটি কিবোর্ড দিয়ে দেন। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই আপনার সেটি পছন্দ নাও হতে পারে। এক্ষেত্রে আপনি পছন্দের ও সুবিধাজনক ভার্চুয়াল কিবোর্ড ব্যবহার করতে পারেন। অনলাইন থেকে কিনে নিন আপনার পছন্দসই কিবোর্ড।

৯। গুগল ক্রোমে গিয়ে ‘রিডিউস ডেটা ইউজেস’ অপশনটি চালু করে নিন। তাহলে অপ্রয়োজনীয় ইন্টারনেট ডেটা খরচ হবে না।

১০। গুগল অথন্টিকেটর ব্যবহারে দুই ধাপে নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে। যদি আপনি জিমেল ব্যবহার করতে চান তাহলে আপনাকে অ্যাপ থেকে সরবরাহকৃত একটি কোড বসাতে হবে, তারপর পাসওয়ার্ড দিতে হবে। কেউ চাইলেও অন্য কোনো কম্পিউটার থেকে আপনার অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করতে পারবে না।






eHostBD Hosting

মন্তব্য করুন