Best Reseller Hosting Service in BD
আমি আতিকুর রহমান। পেশায় একজন B.Sc Engineer. আমি খুব বেশি কিছু জানি না তবে ব্লগ লেখা আমার শখ। তাই যখন সুযোগ পাই তখন লিখতে বসি। যদি আমার একটি পোস্ট ও আপনাদের একটু হলেও হেল্প করে তাহলে আমার চেষ্টা সার্থক হবে। সবাই ভাল থাকবেন।
মোট পোস্ট সংখ্যা: 371  »  মোট কমেন্টস: 5  
Facebook
Google Plus
Twitter
Linkedin

এস ই ও সাইট অডিট কি, কেন এবং কিভাবে করতে হয়?

সবাকে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়ে সুরু করছি। আশা করি সবাই ভাল ও প্রযুক্তির সাথেই আছেন। আজকে সাইট অডিট নিয়ে আমার সামান্য অভিজ্ঞতার আলকে কিছু লেখার চেষ্টা করব। জানি না আপনাদের কাছে কতটুকু গ্রহণযোগ্য হবে তবে যদি কোন ভুল হয় আশা করি সেটা ধরিয়ে দিবেন জাতে আমি আমার ভুল গুলো সনাক্ত করে নিজেকে সামনের দিকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি।

 

যাহোক কাজের কথায় আসি। আলোচনায় ঢোকার আগে আমাদের সবার আগে জানতে হবে এই এস ই ও সাইট অডিট আসলে জিনিসটা কি? আপনারা হয়তো ভাবছেন এখন আমি একটা বইএর মত করে বড় সংজ্ঞা দিবো তাই না। না আসলে আমি অত কিছু জানি না বা অত সুন্দর করে লেখার ক্ষমতাও আমার নাই। আমি সোজা কথার মানুষ। তাই একেবারে সবচেয়ে সহজ করে বলি।

e-HostBD Hosting Service

এস ই ও সাইট অডিট হল কোন একটা সাইট কে নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করে তার ফলাফলের ভিত্তিতে একটা রিপোর্ট তৈরি করা যা দেখে সহজেই যে কেউ এমনকি এই বিষয়ে যার কোন জ্ঞান নাই সেও যেন বুঝতে পারে তার সাইট এর বরতমান অবস্থা কি এবং কোথায় কোথায় পরিবরতন করতে হবে।

মোটকথা সাইট অডিট হল একটা সাইট এর যাবতীয় তথ্য বের করে একটা লিস্ট তৈরি করা। অনেকেই হয়ত ভাবছেন এস ই ও সাইট অডিট করে লাভ কি বা দরকার কি? ও প্রশ্ন টা সবার মনে আসবে এটাই স্বাভাবিক।

আসলে আপনি যদি এস ই ও এক্সপার্ট হওন এবং কোন সাইট নিয়ে কাজ করতে চান তাহলে প্রথমে যে জিনিসটি আপনার লাগবে সেটা হল অই সাইট এর অডিট রিপোর্ট। আপনি যদি সাইট এর কোথায় কি সমসসা আছে সেটাই না জানেন তাহলে ঐ সাইট নিয়ে কাজ করবেন কি।

আগে সাইট নিয়ে গবেষণা করে দেখতে হবে সাইট এর অবস্থা কি? কোথায় কোথায় কি অপ্টিমাইজ করতে হবে এবং কোথায় দরকার নাই ।

আমরা যখন কোন ডাক্তার এর কাছে যাই তখন সে প্রথমে আমাদের কথা শোনে কি সমসসা এবং দরকার হলে বিভিন্ন টেস্ট দেয় সঠিক ভাবে রোগ নিরুপনের জন্য। যখন তিনি রোগ সঠিক ভাবে নিরুপন করতে পারেন তারপর ঔষধ সাজেস্ট করেন খওয়ার জন্য। তবে অনেক হাতুড়ে ডাক্তার আছে জারা কোন কিছু না বুঝেই ঔষধ লেখেন এতে যেমন আমাদের অনেক ক্ষতি হতে পারে তেমনই রয়েছে মিত্যুর ঝুঁকি।

তেমনি কোন সাইট কে অডিট না করে বা সেই সাইট সমসসা নিরুপন না করে সেই সাইট এর এস ই ও করলে সাইট এর তেমন কোন উপকার হবে বলে আমার মনে হয় না তবে বারোটা যে বাজবে এ বাপারে মোটামুটি নিশ্চিত। তবে এখনও অনেক এস ই ও এক্সপার্ট আছেন জারা অডিট কি জিনিস সেটাই জানেন না তাহলে অডিট করবেন কি।

এতক্ষণ অনেক বক বক করলাম। এখন একটা অডিট রিপোর্ট এ কি বিষয় থাকা দরকার বা থাকা উচিৎ বা থাকতে পারে এ বিষয় নিয়ে বলতে চাচ্ছি। তবে একটা জিনিস আপনাদের ভাল করে জানিয়ে রাখি আর সেটা হল এই অডিট রিপোর্ট ওয়েবসাইটের ধরন এবং ব্যাক্তি ভেদে ভিন্ন হতে পারে। কারন ই-কমার্স সাইট এর জন্য এক রকম, ব্লগ এর জন্য অথবা সাধারন সাইট এর জন্য ভিন্ন হতে পারে। এখন আপনি বলতে পারেন ওয়েবসাইট অনুযায়ী ভিন্ন হতেই পারে কিন্তু ব্যাক্তি ভেদে কি করে ভিন্ন হবে। হ্যাঁ ভাইয়ারা ভিন্ন হবে এটাই তো স্বাভাবিক কারন রিপোর্ট তৈরি করেন আকজন ব্যাক্তি, আর সব ব্যাক্তির অভিজ্ঞতা কিংবা যোগ্যতা কিংবা ইচ্ছা কখনই এক হবে না। আশা করি আমি বোঝাতে পারছি।

যাহোক এখন একটি সাইট অডিট রিপোর্ট এ কি কি বিষয় থাকতে পারে এমন কিছু বিষয় নিয়ে বলতে চাচ্ছি।

প্রথমে আপনি যে সাইট নিয়ে রিপোর্ট করবেন সেই সাইট সম্পরকে জানুন। এখানে আপনি সাইট এর নাম, কি ধরনের সাইট বা তাদের বিজনেস টাইপ এবং সংক্ষিপ্ত বিবরন দিতে পারেন।

এরপর যে ডোমেইন নিয়ে রিপোর্ট করবেন সেই ডোমেইন এবং হোস্টিং নিয়ে কিছু তথ্য দিতে পারেন যেমন ডোমেইন নাম, ডোমেইন এর বয়স, হোস্টিং কোয়ালিটি, সার্ভার এর লোকেশন ইত্যাদি আপনি রিপোর্ট এর সাথে যোগ করতে পারেন।

এরপর আপনি সাইট এর কাঠামোগত কিছু দিক নিয়ে আলচনা করতে পারেন। যেমন Duplicate content Title আছে কিনা, Duplicate meta description আছে কি না, text/html ratio কত, w3 validation error আছে কি না, h1 to h6 tag missing আছে কি না বা ঠিক মত ব্যবহার করা আছে কি না ইত্যাদি নি লিখতে পারেন।

এরপর আপনি সাইট এর ব্যাক লিঙ্ক কয়টা, কোথায় কোথায় listing করা আছে এই বিষয়ে কিছু তথ্য দিতে পারেন।

এরপর সাইট এর রাঙ্ক বা পজিশন কি এ বিষয়ে কিছু তথ্য দিতে পারেন। যেমন গুগল পেজ রাঙ্ক কত, আলেক্সা রাঙ্ক কত ইত্যাদি।

এরপর আপনি সাইট কোন ভুল আছে কি না বা Error আছে কি না এ বিষয়ে তথ্য দিতে পারেন। একটা সাইট বিভিন্নি ধরনের error থাকতে পারে যেমন 404 error, 500 error ইত্যাদি আছে কি না তার একটা লিস্ট দিতে পারেন।

এবার আসি লিঙ্ক এর ব্যাপারে, সাইট এর লিঙ্ক কেমন user friendly কি না, broken লিঙ্ক আছে কি না থাকলে কত গুলো, লিঙ্ক এর মদ্ধে কি ওয়ার্ড আছে কি না, Canonical link আছে কি না, 301 & 302 redirection আছে কি না  ইত্যাদি নিয়ে একটা লিস্ট দিতে পারেন।

এরপর দেখুন সাইট এ User friendly Navigation আছে কি না, Favicon আছে কিনা, I Frames আছে কি না, Flash আছে কি না, Contact Us page ইত্যাদি আছে কিনা এবং এদের একটা লিস্ট তৈরি করে রিপোর্ট এ যোগ করতে পারেন।

এরপর যেটা করতে হবে সেটা হল দেখুন ওয়েবসাইট এ Gzip Enable আছে কিনা, xml সাইটম্যাপ আছে কি না, Robots.txt ফাইল আছে কি না, Google Analytics Installed আছে কি না, RSS Feed আছে কি না, সাইট Mobile Friendly কি না, Image Optimization করা আছে কি না,    Content কোয়ালিটি কেমন, GEO Tag আছে কি না ইত্যাদি তথ্য রিপোর্ট এর সাথে অ্যাড করুন।

 

এরপর আসুন সোশ্যাল প্রোফাইল এ। দেখুন সাইট এর ফেসবুক পেজ, গুগল প্লাস পেজ এবং টুইটার পেজ আছে কি না। এরপর দেখুন সাইট এ শেয়ার বাটন আছে কি না। এগুলো বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করে রিপোর্ট এ যোগ করে দিন।

সবশেষে গুগল আনালাইটিক এ যদি সাইট সাবমিট করা থাকে তাহলে ওইখান কিছু তথ্য অ্যাড করতে পারেন জাতে সাইট এর মালিক দেখে বুঝতে পারে সাইট ভিসিটর কেমন।

তবে একটা কথা বলে রাখি সেটা হল আমি যে টার্ম এবং ক্রম অনুসারে সাজিয়েছি এটাই যে মেনে চলতে হবে এমন কোন কথা না। এখানে আরও অনেক কিছু অ্যাড হবে এবং আপনার যদি মনে হয় আখান থেকে কিছু টার্ম বাদ দিলে রিপোর্ট আরও সুন্দর হবে তাহলে বাদ দিতে পারেন। আমি সুধু একটা ফরম্যাট নিয়ে সামান্য আলোচনার চেষ্টা করেছি। একটা জিনিস বলতে ভুলে গেছি সেটা হল প্রত্যেক টার্ম এর সাথে আপনার পরামর্শ অবশ্যই অ্যাড করেবন।






eHostBD Hosting

মন্তব্য করুন