Best Reseller Hosting Service in BD
মোট পোস্ট সংখ্যা: 5  »  মোট কমেন্টস: 0  
Facebook
Google Plus
Twitter
Linkedin

ল্যাপটপ জগৎকে এক অন্যমাত্রায় যুক্ত করেছে অ্যাপেল এর যেই ল্যাপটপটি

২০২০ সালে এসে অ্যাপেল তাদের ম্যাকবুক প্রো m1 chip এর মডেলটি প্রকাশ করার পর থেকেই বাজারে এর ব্যাপক চাহিদা লক্ষ করা গিয়েছে এই ডিভাইসটির, এর প্রধান কারন হলো এতে দেওয়া অত্যান্ত শক্তিশালি m1 chip যেটি ক্রেতাদের মূল আকর্ষণ। অ্যাপেল ম্যাকবুক প্রো ২০২০ ডিভাইসটিতে ব্যবহার করা লেটেস্ট m1 প্রসেসরটি একটি ৮ কোর বিশিষ্ট বিশিষ্ট প্রসেসর এবং প্রসেসরটি ৫ নেনোমিটারের একটা প্রসেসর যেটিকে বিশ্বের দ্বিতীয় ছোট প্রসেসর হিসেবে গন্য করা হয় কারন বর্তমানে ৪ নেনোমিটারের প্রসেসরও বাজারে চলে আসছে। ক্রেতারা যে সমস্ত ফিচার পেতে চলছে এই ল্যাপটপটিতে। macbook pro ২০২০ এ মডেলটিতে তারা ডিসপ্লে সেকশনে ব্যবহার করেছে LED-backlit display যা এর পূর্ব প্রকাশিত মডেলগুলিতে ছিল না। তাছাড়াও এতে ব্যবহার করা হয়েছে 99WHrs একটি ব্যাটারি। এছাড়াও বর্তমান বাজারে এই ল্যাপটপটির দুইটি ভেরিয়েন্টে রয়েছে একটি macbook pro 14” এবং অপরটি macbook pro 16”। চলুন দেখে নেওয়া কি রয়েছে ডিভাইসটির মধ্যে এবং ভেরিয়েন্ট ভেদে এতে কি পরিবতর্ন করা হয়েছে। এছাড়াও  ম্যাকবুক প্রো এর সবগুলো ভার্সনের বাজার মূল্য সম্পর্কে জানতে এখানে ভিজিট করতে পারেন: https://mcsolution.com.bd/laptop/apple/macbook-pro/

প্রসেসর

macbook pro লেটেস্ট ল্যাপটপটিতে প্রসেসর হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে M1 chip। এছাড়াও ২০২২ এ প্রকাশিত macbook pro 14” এবং macbook pro 16” দুইটি ভেরিয়েন্টেই প্রদান করা হয়েছে এই চিপটি তবে আরো ভেরিয়েন্ট এর সাথে। প্রাইস বা মূল্যর উপর ভিত্তি করে পরিবর্তন করা হয়েছে প্রসেসরও। অ্যাপেল M1 প্রসেসরটি একটি ৮ কোর বিশিষ্ট প্রসেসর,যার ৪টি হলো performance core এবং অপর ৪টি effciency cores। প্রসেসরটির বেস ফিক্রোয়েন্সি রয়েছে 2.1 GHz যা বুস্ট হতে পারে 3.2 GHz পর্যন্ত। এছাড়াও কিছু অতিরিক্ত তথ্য দেওয়া যাক আপনাদের প্রসেসরটি সম্পর্কে প্রসেসরটির GPU Base Clock speed 450 MHz যেটি 1278 MHz পর্যন্ত যেতে সক্ষম। 5nm নেনোমিটারের এই প্রসেসর তৈরি করা হয়েছে বিশেষ নেনো টেকনোলজি দ্বারা এবং যেটিই দ্বিতীয় ছোট প্রসেসর বলে পরিচিতি পেয়েছে। অ্যাপেল এর প্রসেসরকে সবসময় সর্বকালের সেরা প্রসেসর হিসেবে অ্যাখ্যা দেওয়া হয়। কারন অ্যাপেলই বরাবর মতো অনেকটা সময় ধরে প্রসেসর বাজারে নিজের অবস্থান দরে রেখেছে শীর্ষে সেটা হোক দাম বা পারর্ফমেন্স অ্যাপেলই সেরা। লেটেস্ট এই প্রসেসরটির বৈশিষ্ট্যর দিকে লক্ষ করলে বুঝা যায় কতটা শক্তিশালি প্রসেসরটি। এই প্রসেসরটি আপনি যেকোন কাজ খুব সহজেই এবং খুব দ্রুত সম্পন্ন করতে সক্ষম হবেন। ৮ কোর বিশিষ্ট প্রসেসরটিতে আপনি সাধারন ব্রাউজিং থেকে শুরু করে হেভি গেমিং সব কিছুই অনায়েশা করতে পারবেন

ডিসপ্লে

macbook pro রিলিজ করা হয়েছে তিনটি ভেরিয়েন্ট এ যার একটি 13” এবং অপর দুইটি 14” এবং 16”। ম্যাকবুক প্রো 1৩.৩ ইঞ্চির ভাসর্নটিতে ব্যবহার করা হয়েছে একটি mini-LED display যার রেজুলেশন সক্ষমতা 2560 x 1500 যেটি হিসাব করলে দেখা যাবে প্রতি ইঞ্চিতে রয়েছে ২২৭ পিক্সেল। ডিসপ্লেটিতে আরো যুক্ত করা হয়েছে 400 nits পর্যন্ত ব্রাইটনেস সার্পোট। এছাড়াও রয়েছে লক্ষাধিক কালারের সার্পোট। অ্যাপেল ডিসপ্লে সব সময়ই ছিল এক ধাপ এগিয়ে অন্যান্য মডেলগুলির তুলনায় । তাদের ডিসপ্লে সেকশনে তেমন কোনো অভিযোগ দেখা যায় নি এখন পর্যন্ত । এই ডিসপ্লেটিতে এই এর প্রদান করা মূল্যকে জাসটিফাই করে বলে আমি মনে করি।

e-HostBD Hosting Service

ব্যাটারি

অ্যাপেলের যেই সেকশনটা নিয়ে একটু শোনা যায় বা ক্রেতাদের অভিযোগ দেখা যায় সেটি এর ব্যাটারি সেকশন। অ্যাপেল এর ব্যাটারি কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও অন্যান্য মডেল এর তুলনায় তবে এই ল্যাপটপটি কিন্তু তেমন পিছিয়ে এই প্রাইস রেঞ্চ থাকা অন্যান্য মডেল এর তুলনায়। ল্যাপটপটিতে ব্যাটারি হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে 58.2 Wh একটি ব্যাটারি যেটি আপনাকে ১৬ থেকে ১৭ ঘন্টা পর্যন্ত ব্রাউজিং সার্পোট এবং ২০-২১ ঘন্টা পর্যন্ত ব্যাটারি ব্যাকআপ বা সার্পোট দিতে সক্ষম। যা অ্যাপেল তাদের অফিসিয়াল সাইটে প্রকাশ করেছে। একজন ল্যাপটপ ইউজার হিসেবে এই ব্যাটারি ব্যকআপ আমি যথেষ্ট বলে মনে করি। তবে অবশ্যই আপনি যদি গেমার হয়ে থাকেন তবে এই ল্যাপটপটি আপনার জন্য নয় কারন এই ল্যাপটপ বা পুরো ম্যাকবুক সিরিজটিই হেভি কাজ এর ভিক্তি করে বানানো হয়েছে যার কারনে এটিকে ওর্য়াক স্টেশন বলেও উপাধি দেওয়া হয়।

আমার মতামত

আজকের আলোচিত macbook pro m1 মডেলটির সব দিক বিবেচনা করে এটা বলা যায় এই প্রাইস রেঞ্জে থাকা অন্যান্য ল্যাপটপের এর তুলনায় এটি কোন অংশ কম নয়। তবে অ্যাপেল ইউজাররা যে সমস্যাটিতে সবসময় পরে থাকে সেটি হলো ব্যাটারি সেকশন। অনেক আগে থেকেই অ্যাপেলের এই অংশটাই ত্রুটি রয়েছে। এই ল্যাপটপটির ব্যাটারি নিয়ে ইউজারদের তেমন কোনো অভিযোগ শোনা যায় নি ।আমি এই পরামর্শটি দিতে পছন্দ করবো আপনি যদি একজন রেগুলার ইউজার হন বা ইডিটর হন এবং আপনার প্রধান গুরত্ব যদি হয় পারর্ফমেন্স তাহলে এর বিকল্প আর কোনোটি হবে না অনায়েশে ল্যাপটপটি নিতে পারেন। আপনাদের মতামত আমাকে জানাবেন। ধন্যবাদ

ভাল লাগলে অবশ্যই শেয়ার করতে ভুলবেন না ...
e-HostBD Hosting Service
eHostBD Hosting

মন্তব্য করুন